১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ


শিরোনাম :
  নন্দীগ্রামে দুই ইউনিয়নের ২৯ গ্রামে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি       সাভা‌রে টায়ার রিকুট ক‌রে উৎপাদন করা তেল ব‌্যবহার হচ্ছে রাস্তা নির্মান কা‌জে       নন্দীগ্রামে ২২ লক্ষ টাকা ব্যায়ে আর সি সি রাস্তা ঢালাই কাজের উদ্বোধন করলেন পৌর মেয়র       নন্দীগ্রাম থানার নবাগত ওসির সাথে পৌর মেয়রের মতবিনিময়       নন্দীগ্রামে ওয়ারেন্টমূলে ৭ মামলার আসামি গ্রেপ্তার       নন্দীগ্রামে নির্মাণ শ্রমিকদের দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ উদ্বোধন       নন্দীগ্রামে আইন শৃংখলা কমিটিরি সভা অনুষ্ঠিত       নন্দীগ্রামে আরো ৮০ টি গৃহহীন পরিবার বাসগৃহ পাচ্ছে       নন্দীগ্রাম থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময়       নন্দীগ্রামে সাংবাদিক নেতাদের সাথে থানার নবাগত ওসির মতবিনিময়    


মৃত বাবার জলন্ত চিতায় মেয়ের ঝাঁপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, এসইটিভি নিউজ: করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে আঘাতে টালমাতাল গোটা ভারত। হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেনের সংকটের কারণে মারা যাচ্ছেন অনেক করোনা রোগী। মৃতদের সৎকারে শ্মশানেও জায়গার সংকুলান হচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতে রাজস্থানে এক করোনা রোগীর সৎকারে করুণ দৃশ্য দেখা গেল।

করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বাবা। এই মৃত্যু মেনে নিতে পারেননি মেয়ে। তাই বাবার দাহকার্য হওয়ার সময় জ্বলন্ত চিতার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন। প্রাণে বেঁচে গেলেও পুড়ে যায় তার শরীর।

মঙ্গলবার ভারতের রাজস্থানের বারমেরে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, রাজস্থানের ৩৪ বছর বয়সী এক নারী বাবার চিতার আগুনে ঝাঁপ দিয়ে গুরুতর দগ্ধ হন। তার বাবা দমোদর দাশ শারদা কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

সঙ্গে সঙ্গে চন্দ্রাকে চিতা থেকে টেনে বের করা হয়। এরপর তাকে যোধপুরের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীরের ৭০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

কোতোয়ালি থানার অফিসার প্রেম প্রকাশ বলেন, মেয়েটি এভাবে ঝাঁপিয়ে পড়বে তা আগে বোঝা যায়নি। তবে সঙ্গে সঙ্গে তাকে বের করে নেয়ায় তিনি প্রাণে বেঁচে যান।

এসইটিভি নিউজ/এনকেএস


Top