২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


শিরোনাম :
  ধামরাই‌য়ে মা‌লিকানা সম্প‌ত্তি জা‌লিয়া‌তির প্রতিবা‌দে সংবাদ স‌ম্মেলন       বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে পুনাকের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ       নন্দীগ্রামে ৯টি ডাকাতি মামলার আসামি গ্রেফতার       নন্দীগ্রামে ১৫৬ পরিবার জমি ও গৃহ পেলেন       নন্দীগ্রামে নালিশী সম্পত্তিতে সংঘর্ষ এড়াতে আদালতের স্থিতি অবস্থা জারি       জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অনুষ্ঠানে এবছর নিমন্ত্রণ পাননি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নায়িকা ববিতা।       কালিয়াকৈরে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে উৎসর্গ ফাউন্ডেশন এর শীতবস্ত্র বিতরণ       নৌকা মার্কা ছাড়া নন্দীগ্রামে মানুষের উন্নয়ন সম্ভব নয়       নন্দীগ্রামে মেয়র প্রার্থী শান্ত’র ব্যাপক গণসংযোগ       ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হলেন ফরিদুল হক    


বাস-কাভার্ডভ্যান ও অ্যাম্বুলেন্সের ত্রিমুখী সংঘর্ষে প্রাণ হারা একই পরিবারে পাঁচ জন

এসইটিভি নিউজ ডেস্ক:

ঢাকা থেকে নবজাতকের মরদেহ নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে গ্রামে ফিরছিলেন একই পরিবারের পাঁচজন। কিন্তু বাড়ি পৌঁছানোর আগেই অ্যাম্বুলেন্স চালকসহ সবাইকে হতে হলো মরদেহ। বাস-কাভার্ডভ্যান ও অ্যাম্বুলেন্সের ত্রিমুখী সংঘর্ষে প্রাণ হারান তারা। একই পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যুতে শোকের মাতম চলছে নিহতদের ঝালকাঠি সদর উপজেলার বাউকাঠি গ্রামের বাড়িতে। দুর্ঘটনার খবর শুনে বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে নিহত পাঁচজনের বাড়িতে ভিড় করেন স্থানীয়রা। এছাড়া বিভিন্ন স্থান থেকে আত্মীয়-স্বজনরাও আসছেন ওই পরিবারের অন্য সদস্যদের শান্তনা দিতে। এ সময় ওই গ্রামের স্বজনদের কান্নায় আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে ওঠে।

 

নিহতরা হলেন- ঝালকাঠির বাউকাঠি এলাকার বাসিন্দা ও গাজীপুরের একটি পোশাক কারখানার চাকরিজীবী আরিফুর রহমান ও তার বোন শিউলী বেগম, আরিফের মা কোহিনুর বেগম, ভাই তারেক রহমান এবং তার সম্বন্ধি নজরুল ইসলাম। নিহত অপরজন দুর্ঘটনায় কবলিত অ্যাম্বুলেন্সের চালক কুমিল্লার আলমগীর হোসেন। নিহতদের পরিবারের লোকজন জানায়, আরিফুর ঢাকায় গার্মেন্টস এ চাকরি করতেন। বিয়ের সাত বছর পরে ঢাকার উত্তরা একটি হাসপাতালে তাদের কন্যাশিশু জন্ম নেয়। অসুস্থ অবস্থায় শিশুটি মারা গেলে বুধবার তাকে নিয়ে আরিফুর ও তার বোন সিনিয়র স্টাফ নার্স শিউলিসহ স্বজনরা ঝালকাঠি বাড়ির উদ্দেশে একটি অ্যাম্বুলেন্স যোগে রওনা হন।

 

বুধবার বিকেলে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জয়শ্রী গ্রামের ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে বাস- অ্যাম্বুলেন্স-কাভার্ডভ্যানের ত্রিমুখী সংঘর্ষে তারা সবাই ঘটনাস্থলেই মারা যান। নিহত আরিফুরের ফুপাতো ভাই রাশেদুল হাসান সুমন জানান, নিহত আরিফুরের স্ত্রী শারীরিকভাবে অসুস্থতার কারণে তিনি ঢাকাতেই রয়েছেন। তবে দুর্ঘটনায় আরিফুরসহ পরিবারের বাকি পাঁচ সদস্য শিশুটির দাফন সম্পন্ন করার জন্য গ্রামের বাড়িতে আসছিলেন।

এসইটিভি নিউজ/আর কে রকি


Top