২৮শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ১২ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ


শিরোনাম :
  দুপচাঁচিয়াতে বঙ্গবন্ধু ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাঙ্গচুরের প্রতিবাদে উপজেলা যুবলীগের মানববন্ধন       নন্দীগ্রাম থানার অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার-১       নৌকার মনোয়নপত্র পাওয়ায় মোটরসাইকেল শোডাউন ও আনন্দ মিছিল       নওগাঁর মান্দায় নৌকার মনোনয়নপত্র বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ       আদমদীঘিতে ওষুধের ফার্মেসিতে চাঁদা চাইতে গিয়ে ভুয়া ডিবি পুলিশ গ্রেফতার       নন্দীগ্রামে গলায় দড়ি দিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা       মান্দায় সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন ফরম উত্তোলন করেন আলমগীর হোসেন প্রামানিক       মান্দার তেঁতুলিয়ায় বিএনপির নির্বাচনী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত       চুয়াডাঙ্গায় বিয়েবাড়িতে মাংস বেশী খাওয়া নিয়ে মারামারি, আহত ৩       মান্দায় আত্মহত্যা    


নন্দীগ্রামে প্রধান শিক্ষিকার সঙ্গে শিক্ষকের অশালীন আচরণের অভিযোগ

মামুন আহমেদ (স্টাফ রিপোর্টার) এসইটিভি নিউজঃ

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রণবাঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে অশালীন আচরণের অভিযোগ করেছেন একই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হালিমা খাতুন। সোমবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে নন্দীগ্রাম রণবাঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হালিমা খাতুন অভিযোগ দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জানা গেছে, গত শনিবার রণবাঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শাহিনা আক্তার নৈমিত্তিক ছুটিতে ছিল। তার অনুপস্থিতির কারণে সকাল সাড়ে ৯টায় ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কামরুজ্জামানকে চতুর্থ শ্রেণির গণিত পাঠদান নেওয়ার জন্য বলেন প্রধান শিক্ষিকা হালিমা খাতুন। এসময় প্রধান শিক্ষিকা হালিমা খাতুনের সঙ্গে সহকারী শিক্ষক কামরুজ্জামান অকথ্য ভাষায় অশালীন আচরণ করেন। এরআগেও বিভিন্ন সময় প্রধান শিক্ষিকা হালিমা খাতুনকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ হুমকি প্রদান করেছেন তিনি। এই বিষয়ে গত রবিবার রণবাঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হালিমা খাতুন বাদী হয়ে নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন। রণবাঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কামরুজ্জামান বলেন, আমি এখন ব্যস্ত আছি। এবিষয়ে পরে বলবো, বলেই ফোনটি কেটে দেন তিনি। জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অফিসার শিফা নুসরাত বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগের তদন্ত করার জন্য উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এবিষয়ে নন্দীগ্রাম উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল কাইয়ুম বলেন, সহকারী শিক্ষক কামরুজ্জামান এর বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত চলছে। তদন্তে প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসইটিভি নিউজ/মামুন


Top