৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ


শিরোনাম :
  নন্দীগ্রামে জাতীয় পার্টির দোয়া ও খাবার বিতরণ       নন্দীগ্রামে ওএমএস’র চাল ও আটা বিক্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন       নন্দীগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাসামগ্রী প্রদান করলেন এমপি মোশারফ হোসেন       কুন্দারহাট হাইওয়ে থানার নয়া ওসি আনোয়ারুল       দুই কিশোরীকে পাচার ঠেকালো লকডাউন, গ্রেফতার ১       নন্দীগ্রামে জাতীয় পার্টির তিনদিনের শোক কর্মসূচী       নন্দীগ্রামে বজ্রপাতে পিতাপুত্রের মৃত্যু       ইন্টারভিউ ছাড়াই নেয়া হচ্ছে ৮ হাজার নার্স-চিকিৎসক       দেশে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৪৭ মৃত্যু, শনাক্তেও নতুন রেকর্ড       নন্দীগ্রামের সিংড়াখালাশ মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন    


দুর্গাপূজায় জাল টাকা ছড়ানোর পরিকল্পনা ছিল তাদের

বিশেষ প্রতিনিধি, এসইটিভি নিউজ:

আসন্ন দুর্গাপূজাকে টার্গেট করে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় জাল টাকা ছড়িয়ে দিতে চেয়েছিল একটি চক্র। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) অভিযান চালিয়ে রাজধানীর ডেমরা এলাকা থেকে এই চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ডিএমপির সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের একটি টিম।

 

গ্রেফতাররা হলেন- মো. ইউসুফ আলী, আব্দুর রহিম ওরফে হেলাল হোসেন রহিম, ফজলে রাব্বী মিয়া ও মো. জাহিদ ইসলাম। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৬৫ লাখ টাকার জাল নোট ও জাল টাকা তৈরির সরঞ্জামাদি জব্দ করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, রাজধানী ও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে জাল টাকার নোট উৎপাদনকারীরা ঈদ, পূজা ও বড় উৎসবকে টার্গেট করে বাজারে জাল নোট ছড়িয়ে দিতো। এক লাখ টাকার জাল নোট তৈরি করতে খরচ হয় দশ হাজার টাকা। পরবর্তীতে এক লাখ টাকার জাল নোট পাইকারির কাছে বিক্রি করতো পনেরো হাজার টাকায়। পাইকারি বিক্রেতা প্রথম খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রি করতো বিশ থেকে পঁচিশ হাজার টাকায়। পরবর্তী ধাপে প্রথম খুচরা বিক্রেতা দ্বিতীয় খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রি করতো ৪০ থেকে ৪৫ হাজার টাকায়।

 

জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, মাঠ পর্যায়ে তাদের কর্মীরা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনে এই জাল টাকা বাজারে সরবরাহ করতো। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে ডেমরা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এসইটিভি নিউজ/বার্তা বিভাগ


Top