৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ || ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


শিরোনাম :
  নব নির্বাচিত কেন্দ্রীয় যুবলীগ সদস্যকে ইউনিয়ন যুবলীগ’র ফুলেল শুভেচ্ছা       রাজশাহীতে বিয়ের ১২ দিন পর ইউপি ভবনে মিললো বরের লাশ       ভালো দামের আশায় আলু চাষে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষক       চ্যানেল বি২৪’র উপদেষ্টা মহোদয়গনের পরিচিতি ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত/চ্যানেল বি২৪       রায়গঞ্জ পৌরসভায় ৫০ লাখ টাকা ব্যায়ে পাকা রাস্তার কাজের উদ্ভোধন করেন অধ্যাপক ডা: আজিজ       নকলা সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসর প্রাপ্ত শিক্ষকের পরলোকগমন       চাঁপাইনবাবগঞ্জের সীমান্তে বিজিবির হাতে ৬০ বোতল ফেনসিডিলসহ ১ জন গ্রেফতার       দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ে       কালিয়াকৈর উপজেলা আ.লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত; সভাপতি মুরাদ, সম্পাদক রাসেল       নন্দীগ্রাম থানায় নতুন ওসি’র যোগদান    


ইউজিসি এবং তদন্ত কমিটি প্রতি আস্থা নেই আন্দোলনরত ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীদের

আকিক তানজিল জিহান (বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি) এসইটিভি নিউজ:

১৯ ফেব্রুয়ারি বুধবার বেলা ১২টায় প্রশাসনিক ভবনের সামনে প্রেস ব্রিফিং করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এই প্রেস ব্রি‌ফিংয়ে ইতিহাস বিভা‌গের পক্ষে লি‌খিত বক্তব্য পাঠ ক‌রেন তৃতীয় ব‌র্ষের ছাত্র কারিমুল হক। 

এসময় তিনি বলেন, “এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিভাগের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) কতৃক অনুমোদন নেই। বিভাগের অনুমোদন না থাকলেও বর্তমানে ইতিহাস বিভাগে ৪১৩ জন শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত আছে। এই বিভাগের অনুমোদনের দাবিতে গত ৬ ফেব্রুয়ারি রাত ৯টা থেকে আমরা ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা প্রথমে প্রশাসনিক এবং পরে একাডেমিক ভবনে তালা লাগিয়ে আন্দোলন ও অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছি।

 ১৮ ফেব্রুয়ারি ইতিহাস বিভাগের অনুমোদনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক সমস্যা সমাধানের জন্য ইউজিসি কর্তৃক সাত সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রফেসর ড. দিল আফরোজ বেগমকে প্রধান করে  সাত সদস্যের তদন্ত কমিটিতে রয়েছেন প্রফেসর ড. মোঃ আলমগীর হোসেন, প্রফেসর ড. মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক প্রফেসর ড.ন কামাল হোসেন (সদস্য সচিব), বশেমুরবিপ্রবির চলতি উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ শাহজাহান, বশেমুরবিপ্রবির রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মোঃ নূরউদ্দিন আহমেদ এবং বশেমুরবিপ্রবির জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম এ সাত্তার।( সূত্রঃ বশেমুরবিপ্রবি রেজিস্ট্রার) 

 কিন্তু গঠিত কমিটি ঠিক কত দিনের ভিতর তাদের প্রতিবেদন জমা দিবে এ বিষয়ে উল্লেখ নেই। ফলে কমিটির প্রতিবেদনের আলোর মুখ দেখা নিয়ে আমরা যথেষ্ট সন্দিহান।”

এসময় শিক্ষার্থীরা ইউজিসির কার্যক্রমের বিষয়ে প্রশ্ন তুলে বলেন, “ইউজিসির কাছে আমরা কিছু প্রশ্ন রাখতে চাই, ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি ওরিয়েন্টেশন পোগ্রামে তৎকালীন ইউজিসি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান উপস্থিত ছিলেন। তারপর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিভাগে ৩ ব্যাচে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়, ইউজিসি কিভাবে এতটাই উদাসীন থাকে যে এ বিষয়ে তিন বছরেও অবগত হননি? আজকে যখন এই শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে তখন ইউজিসি কি কোনোভাবে এর দায় এড়াতে পারে?

আমরা জানি প্রতি ৬ মাস পরপর ইউজিসি কর্তৃক বিশ্ববিদ্যালয় অডিট করা হয়। তাহলে গত তিন বছরের অডিটে ইউজিসি কি কখনো দেখিনি যে বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন বিহীন একটা ডিপার্টমেন্ট রয়েছে ?

আমরা বলবো ইউজিসি তাদের কর্তব্যে অবহেলা করেছে অথবা তারা দুর্নীতিগ্রস্থতার কারণে তিন বছর ধরে একটা বিভাগ একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলছে কিন্তু সে বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।”

হুশিয়ার করে দিয়ে বলেন,”যদি কেউ এই আন্দোলনকে পুঁজি করে ৪১৩ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে অপরাজনীতি চেষ্টা করেন বা নীল নকশা একে থাকেন তাদেরকে আমরা সতর্ক করে দিয়ে তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই এই শিক্ষার্থীদের নিয়ে আপনারা খেলবেন না এর পরিণাম ভালো হবে না।”

এসময় শিক্ষার্থীরা জানান, আগামীকাল ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে আমরণ অনশন শুরু করবেন।

এসইটিভি নিউজ/রকি


Top