২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ || ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


শিরোনাম :
  ধামরাই‌য়ে মা‌লিকানা সম্প‌ত্তি জা‌লিয়া‌তির প্রতিবা‌দে সংবাদ স‌ম্মেলন       বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে পুনাকের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ       নন্দীগ্রামে ৯টি ডাকাতি মামলার আসামি গ্রেফতার       নন্দীগ্রামে ১৫৬ পরিবার জমি ও গৃহ পেলেন       নন্দীগ্রামে নালিশী সম্পত্তিতে সংঘর্ষ এড়াতে আদালতের স্থিতি অবস্থা জারি       জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অনুষ্ঠানে এবছর নিমন্ত্রণ পাননি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নায়িকা ববিতা।       কালিয়াকৈরে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে উৎসর্গ ফাউন্ডেশন এর শীতবস্ত্র বিতরণ       নৌকা মার্কা ছাড়া নন্দীগ্রামে মানুষের উন্নয়ন সম্ভব নয়       নন্দীগ্রামে মেয়র প্রার্থী শান্ত’র ব্যাপক গণসংযোগ       ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হলেন ফরিদুল হক    


নন্দীগ্রামে ১০ দিনের মধ্যে পূনর্বাসনের আবেদন

আশ্রয় কেড়ে নিচ্ছে সড়ক বিভাগ, দিশেহারা ভুমিহীন ২৮ পরিবার

মামুন আহমেদ (স্টাফ রিপোর্টার) এসইটিভি নিউজঃ

চলমান রাস্তা প্রসস্থ কাজের জন্য বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের পাশে বসবাস করা ভ‚মিহীন পরিবারগুলোর পুনর্বাসন না করেই বসত-বাড়ি সরিয়ে নিতে ১০ দিনের সময় বেঁধে দিয়েছে সড়ক বিভাগ। বগুড়ার নন্দীগ্রাম পৌরসভার ২নং ওযার্ডের ওমরপুর মহাসড়ক-পাড়ার ভ‚মিহীন পরিবারগুলো এ অভিযোগ করেন। পুনর্বাসন না করায় থাকা-খাওয়া এমনকি ঘুমানোর জায়গা পর্যন্ত থাকছেনা জানিয়ে ২৮ পরিবার একসঙ্গে আত্মহত্যার হুমকি দিয়ে গতকাল বুধবার উপজেলা পরিষদে গিয়ে নির্বাহী অফিসার (ইউএনও), উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বরাবর পৃথক মানবিক আবেদন (দরখাস্থ) প্রদান করেছে।
ভ‚মিহীনরা বলেন, রাস্তার সাথেই টং ঘরে দীর্ঘদিন ধরে আমরা বসবাস করছি। গভীর রাতে ট্রাক উল্টে ঘুমন্ত পুরো পরিবারের বুকের উপর আছড়ে পড়েছিল। গাড়ির চাকায় পৃষ্ট হয়েছে আপনজন। মৃত্যু আতংক নিয়েই আমরা বসবাস করছি। আগামী ১৫ তারিখের পর থেকে থাকা-খাওয়া এমনকি ঘুমানোর জায়গাও থাকবেনা। আশ্রয়টুকু কেড়ে নিচ্ছে সড়ক বিভাগ। বসত বাড়ি সরিয়ে নিতে ১০ দিনের সময় বেঁধে দিয়েছে। ভ‚মিহীনরা আকুতি জানিয়ে বলেন, আমরা গরীব অসহায়, দিন আনি দিন খাই, আমাদের কারো এক শতক জায়গা পর্যন্ত নেই। আমরা বারবার আবেদন জানিয়েছি, কিন্তু কেউ কোন প্রকার নজর দেয়নি। এখন আমাদের বাড়ি-ঘর ভেঙে দিলে আমরা কোথায় যাব, ১০ দিনের মধ্যে আমাদের পূনর্বাসনের জন্য আবেদন (দরখাস্থ) করেছি, এই আবেদন আমাদের জীবনের শেষ আবেদন। এরপরও যদি আমাদের কোন ব্যবস্থা না হয়, বাধ্য হয়ে ২৮ পরিবারের সদস্যরা বিছানা বালিশ নিয়ে মহাসড়কে শুয়ে পরবো। সরকার যদি ঘুমানোর জায়গা না দেয়, আমাদের উপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে চিরতরে ঘুমিয়ে দিবেন। আমরা আত্মহত্যার পথ বেছে নিব। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার আশা দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. শারমিন আখতার।

 

এসইটিভি নিউজ/মামুন


Top